• Tue. May 24th, 2022

BograOnline.Com

Online News Portal

শেরপুরে দেবোত্তর মন্দির ভেঙ্গে বাড়ি নির্মাণের অভিযোগ ।

Byadmin

Apr 21, 2022

ষ্টাফ রিপোর্টার

বগুড়ার শেরপুর পৌরশহরের পূর্ব দত্তপাড়া এলাকায় দেবোত্তর মন্দিরের সম্পত্তি দখল করে বসতবাড়ি নির্মাণের অভিযোগ সহোদর বড়ভাই মধুসুদন দত্তের বিরুদ্ধে। 

এদিকে দেবত্তর সম্পত্তি ও মন্দির রক্ষার্থে ছোট ভাই আদালতে বিজ্ঞ আদালতে মামলা দায়ের করেন। আদালতের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ওই দেবত্তর সম্পত্তিতে পুনরায় ইমারত নির্মাণ করছে প্রভাবশালী বড়ভাই। ছোট দুই ভাই প্রতিবাদ করলে প্রতিপক্ষ বড়ভাই ও তাদের ছেলেরা মারপিটসহ হত্যা গুমের হুমকীতে নিরাপত্তাহীনতা ভূগছে অসহায় ভূক্তভোগী পরিবার।

জানা যায়, বগুড়ার শেরপুর পৌর শহরের দত্তপাড়া এলাকায় মৃত মৃগেন্দ্র নাথ দত্তের ৫ ছেলের মধ্যে দুই ছেলে দেশত্যাগ করায় মধুসূদন দত্ত, চন্ডিচরন দত্ত ও সঞ্জিত কুমার দত্ত তৎকালীন জমিদার প্রথার আদলে ৭.৯৪ শতাংশ জায়গায় পুরাতন বিল্ডিং বাড়ীতে বসবাস করে আসছে। ওই সম্পত্তির মধ্যে দুই ভাইয়ের অংশ বড়ভাই মধুসুদন দত্ত ও ছোট সঞ্জিত দত্তকে দান করে যায়। 

যার ফলে দু’ভাগের অংশে ৩.১৭৬ হলেও চন্ডিচরণ দত্ত পায় ১.৫৮৮ শতাংশ। তাছাড়া ওই বাড়ির অভ্যন্তরে একটি পারিবার মন্দির নির্মাণ করে সম্পত্তি দেবোত্তর করে যায় তৎকালীন পূর্বপুরুষেরা। দেবত্তোর মন্দিরের সম্পত্তি বিক্রি করার বিধান না থাকলেও বড়ভাই মধুসুদন দত্ত প্রভাব খাটিয়ে জোরপূর্বক মন্দিরের একাংশ ভেঙ্গে ১শতক জায়গা দখলে নিয়ে ৪.৮৩ শতাংশে বহুতল ভবনের নির্মাণের কাজ শুরু করে। এছাড়াও তিনি মন্দিরের জায়গায় সাবমার্জিবল পাম্প, টিউবওয়েল বসিয়েছেন ও রান্নার চুলা নির্মাণ করেছেন। দেবোত্তর সম্পত্তি বেদখল দিয়ে বহুতল ভবন নির্মাণের চেষ্টায় ছোট ভাই চন্ডিদত্ত ও সঞ্জিত দত্ত প্রতিবাদ করলে প্রতিপক্ষ বড় ভাই তাদের মারধর করাসহ বাড়ি থেকে বিতাড়িত করে দেওয়ার হুমকী প্রদান করে। এঘটনায় শেরপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করলেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি এমন অভিযোগ তুলেছেন ভূক্তভোগী পরিবার। এছাড়াও এহেন ঘটনায় মিমাংশা করার জন্য পৌর মেয়র ও স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলরের উপস্থিতে একটি সালিশি বৈঠক হলে বড়ভাই মধুসুদন দত্ত মন্দির না ভাঙ্গা ও ভেঙ্গে ফেলা ভোগের ঘর পুণঃনির্মাণের অঙ্গিকার করে। এরপরেও প্রভাবশালী বড়ভাই মধুসুদন দত্ত আবারও ওই দেবোত্তর সম্পত্তি দখল করতে মন্দিরের একাংশ ভেঙ্গে তার ভবণ নির্মাণের কাজ শুরু করে।

উপায়ন্তর না দেখে সঞ্জিত দত্তসহ ভুক্তভোগীরা বগুড়া জজ কোর্টে ফৌজদারী কার্যবিধি ১৪৪/১৪৫ ধারায় মামলা দায়ের করে। এতে আদালতের নির্দেশে উভয়পক্ষের শান্তি বজায় রাখার জন্য গত ৪ এপ্রিল শেরপুর থানা থেকে নোটিশ প্রদান করেন। এরপরে বড়ভাই মধুসুদন দত্ত স্থানীয় কতিপয় প্রভাবশালীদের মদদে সকল আইন ও অঙ্গীকার উপেক্ষা করে নানা অন্যায়-অত্যাচার করে আসছে। এর ফলশশ্রুতিতে গত ১৭ এপ্রিল নিজ বাড়ীতে মিমাংশার কথা বলে ডেকে নিয়ে গিয়ে মামলা তুলে নেয়ার চাপ সহ জায়গা দখল সংক্রান্ত কোন প্রতিবাদ করলে হত্যা ও গুমের হুমকীও প্রকাশ্যে দেয়। 

দেবোত্তর সম্পত্তি ও মন্দির রক্ষার প্রতিকার ও জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে ১৯ এপ্রিল মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে শেরপুর উপজেলা প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এসব কথাগুলো তুলে ধরেন ভূক্তভোগী সঞ্জিত কুমার দত্ত। এসময় চন্ডীচরণ দত্ত ও তাদের স্ত্রীসহ পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, ওই বিবাদমান সম্পত্তি নিয়ে উভয়পক্ষের শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখতে আদালতে নিদের্শে নোটিশ প্রদান করা হয়েছে। তবে বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে উপজেলা সহকারি কমিশনার(ভূমি) কর্মকর্তাকে বলা হয়েছে।

এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট পৌর মেয়র আলহাজ¦ জানে আলম খোকা বলেন, ওই বিবাদমান সম্পত্তি নিয়ে অভিযোগের ভিত্তিতে সংশ্লিষ্ট কাউন্সিলরের সমন্বয়ে মিমাংশা বৈঠকে আপোশ মিমাংসাপত্র তৈরী হয়। তাছাড়া দেবোত্তর সম্পত্তিতে ব্যক্তিগত বিল্ডিং নির্মাণ, বিক্রয় বা হস্তান্তরযোগ্য নয় বলে দাবী করেন পৌর মেয়র।

Leave a Reply

Your email address will not be published.