• Tue. May 24th, 2022

BograOnline.Com

Online News Portal

আবাদি জমি পুকুরে রুপান্তর! রাস্তা ধসে পড়ার সম্ভাবনা ।

Byadmin

Apr 8, 2022

বগুড়ার শেরপুর অবৈধভাবে পুকুর খনন করায় এলাকার চলাচলের রাস্তা হুমকীরমুখে পড়েছে। পুকুরের পাশের আবাদী জমিগুলোও পানিশুণ্য হওয়ার আশংকা করছেন চাষীরা। এদিকে গ্রামের সংকীর্ণ রাস্তায় অবিরাম ভারি ট্রাক চলাচলের কারণে জানজটে নাকাল এলকাবাসী। উপজেলার খানপুর ইউনিয়নে দেখা গেছে এমন চিত্র।

সরজমিনে দেখা যায়, এলকার আট নং ওয়ার্ড মেম্বার রফিকুল ইসলাম তার নিজস্ব প্রায় সাতে ৩ বিঘা জমিতে পুকুর খনন করছেন। এলকাবাসীর দাবী গত দুই বছর আগেও এখানে তিন ফসলী আবাদী জমি ছিল। এর মধ্যেই জমির মাটি বিক্রি করে গহীন পুকুরে পরিণত করা হয়েছে।

এলাকার রজব আলী বলেন, পুকুর খনন করার সময় দক্ষিণের রাস্তার পার্শ্বে কোন পাড় রাখা হয়নি। ইতি মধ্যেই রাস্তার খানিকটা ধ্বসে গেছে। সামনের বর্ষায় রাস্তা আর চলাচলের যোগ্য থাকবে না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কৃষক বলেন, ”আবাদী জমি ঘেসে পুকুর খনন করার ফলে আমাদের জমির পনি চুইয়ে  পুকুরে যায়। এর ফলে। আমাদের সেচের খরচ বৃদ্ধি পাচ্ছে।”

এদিকে মাটি পরিবহণ কাজে ব্যবহৃত অবিরত বড় বড় ট্রাক চলাচলের কারণে গ্রামের কিছু কিছু রাস্তা নষ্ট হয়ে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। আর যানযটের কারণে বিঘ্নিত হচ্ছে কয়ারখালী বাজারের ব্যবসা ও চলাচল। স্থানীয় শমসের আলী বালেন, ”সকাল                   সন্ধ্যা এখান দিয়ে মাটির ট্রাক চলাচল করে। রাস্তা বন্ধ হয়ে থাকে। ব্যবসা করা তো দূরের কথা, ছেলে মেয়েরা স্কুলে পর্যন্ত যেতে পারে না।

এ বিষয়ে ইউপি মেম্বার মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, ”এখানে আগে থেকেই পুকুর ছিল।” তবে রাস্তার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি কোন সদুত্তোর দিতে পারেন নাই।

এ বিষয়ে খানপুর ইউনিয়নের চেয়াম্যান পিয়ার হোসেন বলেন, আজকেই আমি খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পরিষদের লোক পাঠিয়েছিলাম, আজকে কাজ বন্ধ রয়েছে। পরবর্তীতে আমি নিজেই গিয়ে রাস্তার ব্যাপারটা দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করব।

এ বিষয়ে শেরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ময়নুল ইসলাম বলেন, ”সংবাদ পেয়ে সরজমিনে তদন্তের জন্য কর্মকর্তাকে পাঠিয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।”

Leave a Reply

Your email address will not be published.